আজ : সোমবার, ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১০ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং, ২রা রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী, সকাল ৬:৫১,

নথি না আসায় খালেদা জিয়ার জামিন আদেশ সোমবার

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন হওয়া না হওয়ার বিষয়ে হাইকোর্ট আদেশ দিবেন সোমবার। নিম্ন আদালত থেকে নথি না আসায় হাইকোর্ট এ দিন ঠিক করেন।

এর আগে রোববার সকালে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চে খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি শুরু হয়।

সকালে শুনানির শুরুতে খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন জামিনের বিষয়ে আদেশ চান। তিনি শুনানিতে বলেন, ‘আপনাদের ক্ষমতা আছে আদেশ দেওয়ার জন্য। নথিও চেয়েছিলেন কিন্তু সেটি আসেনি। তারপরও আমরা জামিনের আদেশ চাইছি।’

আদালত এ বিষয়ে বলেন, ‘নথি আসার দিন আজ পর্যন্ত আছে। নথি পাঠানোর বিষয়ে আমাদের আদেশ কতটুকু বাস্তবায়িত হয়েছে সেটিও দেখার বিষয়। জামিন আদেশটি আগামীকালের জন্য রাখি। নট টুডে।’

খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতে আইনজীবীদের মধ্যে ছিলেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, খন্দকার মাহবুব হোসেন, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। শুনানি চলাকালে আদালত কক্ষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আমির খসরুসহ বিএনপির কেন্দ্রীয় অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ড মাথায় নিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন। হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী ১৫ দিনের মধ্যে নথি আসার সময়সীমা শেষ হয়েছে বিষয়টি খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালতের নজরে আনেন গত বৃহস্পতিবার।

পরে আদালত জামিন বিষয়ে শুনানির জন্য রোববার দিন ঠিক করেন হাইকোর্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

অজগর দিয়ে শরীর ম্যাসাজ!

Share চেহারা সুন্দর রাখতে আমরা কত কিছুই না করি! ত্বককে আরাম দিতে মাসে এক বার হলেও স্পা, নানা রকম উপাদেয় দিয়ে স্বাস্থ্যকর ম্যাসাজ করে থাকি। কখনো কি শুনেছেন, একটা অাস্ত অজগর দিয়ে শরীর ম্যাসাজ করার কথা? ঠিক ...

অনাথ, অসহায়ের শাসনকর্তা হতে চাই: ইমরান

Share ভোটগণনায় ইমরানের ক্ষমতায় আসা প্রায় নিশ্চিত। শেষ পর্যন্ত ১৩৭-এর ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে না পারলেও বিলাবল জারদারির পিপিপি-র সঙ্গে জোটের রাস্তাও প্রায় পাকা। ফলে পাক প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসা এখন শুধুই সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছেন ...