আজ : শুক্রবার, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং, ১৬ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী, রাত ১১:৩১,

নরসিংদীতে ঊর্ধ্বমুখী সব্জী ও পেঁয়াজের বাজার

এম.লুৎফর রহমান, নরসিংদী প্রতিনিধি :

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায়কে ঘিরে সৃষ্টি হওয়া রাজনৈতিক সঙ্কটের প্রভাব পড়েছে নরসিংদীর কাঁচাবাজারেও। সরবরাহ ব্যাহত হওয়ায় দাম বেড়েছে বেশির ভাগ পণ্যের। গতকাল শুক্রবার নরসিংদীর কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়, ফার্মের   ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিপ্রতি ১০ থেকে ২০ টাকা বেড়েছে। ৫ থেকে ১০ টাকা বেড়েছে প্রায় সবসবজির দাম। বিশেষ করে লাউয়ের দাম বেড়েছে অস্বাভাবিক। নরসিংদীর বাজারগুলোতে লাউয়ের দাম অনেকটাই সাধারণের নাগালের বাইরে। মাঝারি আকারের একটি লাউয়ের দাম ব্যবসায়ীরা চাচ্ছেন ৮০ থেকে ১০০ টাকা। রায়পুরা মরজাল বাজারের সবজির ক্রেতা মিজান ক্ষোভের সঙ্গে জানান, লাউ এখন আর আমাদের মতো স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য না। একটা লাউয়ের দাম চায় ১০০ টাকার ওপরে। অথচ গত বছর এমন সময় এসব লাউ ২০ থেকে ৩০ টাকা পিস বিক্রি হয়েছে। লাউয়ের যে দাম হয়েছে, এখন ওই দামে মুরগিই পাওয়া যায়। আপনিই বলেন তাহলে মুরগি খাব না লাউ খাব। লাউয়ের এমন দামের বিষয়ে ব্যবসায়ী আসিফ হাসান বলেন, আড়ত থেকে আমাদের বেশি দামে কিনতে হচ্ছে, তাই বিক্রি করতে হচ্ছে বেশি দামে। দাম যতই বাড়ুক ক্রেতার  অভাব নেই। প্রতিদিন যে লাউ আনি তা ওই দিনই বিক্রি হয়ে যায়। একটি লাউও অবশিষ্ট থাকে না। তার দোকানে প্রতি পিস লাউ ৮০ থেকে ১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে বলে জানান আসিফ হাসান। বাজারে গতকাল প্রতি কেজি বেগুন বিক্রি হয় ৪০ থেকে ৫৫ টাকা। কেজিতে  ৪০ টাকা বেড়ে বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকায়। এ ছাড়া প্রতি পিস বাঁধাকপি ১৫ থেকে ২০ টাকা, ফুলকপি বড় ১৫ থেকে ২৫ টাকা, পেঁপের  কেজি ২০ থেকে  ৩৫ টাকা, শিম ৩০ থেকে ৪০ টাকা, টমেটো ১০ থেকে ২০ টাকা,  কাঁচামরিচ   ১২০ টাকা, গাজর ৪৫ টাকা, শসা ২০ থেকে ৩৫ টাকা, করলা ৮০ থেকে ৯৫  টাকা, মূলা ২০ থেকে ২৫ টাকা, আলু ২০ থেকে ২৮ টাকায় বিক্রি করতে দেখা  যায়।নরসিংদীতে কায়েমী স্বার্থবাদী মসলা সিন্ডিকেটের কালো হাতের ইশারায় পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিক পর্যায়ে রয়ে গেছে। স্বাধীনতা উত্তরকালের ৪৮ বছর ধরে পেঁয়াজ, রসুন, মরিচ, হলুদসহ বিভিন্ন মসলা নিয়ে একটি সিন্ডিকেট সাধারণ মানুষের পকেট থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অথচ কোন সরকারই এই কায়েমী স্বার্থবাদী সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কোন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারছে না। যার ফলে বছরের পর বছর ধরে নরসিংদীতে মসলা সিন্ডিকেট সরকারকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পেঁয়াজের বাজার থেকে মনোপলি ফায়দা লুটে নিচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। পক্ষান্তরে কোটি কোটি টাকার মালিক হচ্ছে মসলা সিন্ডিকেটের সদস্যরা। পেঁয়াজের মুল্য বৃদ্ধির প্রসঙ্গে নরসিংদীর একজন কৃষিবিদ ও সচেতন ক্রেতারা জানিয়েছেন, বর্তমানে দেশে রাজনিতির অস্থিতিশীলতাকে পুঁজি করে ভারত থেকে আমদানি করা বড় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে। এ ছাড়া আদা ৯০ থেকে ১০০  টাকা, মরিচ ১২০ থেকে ১৩০ টাকা এবং রসুন ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তারা আরো জানান, বিদেশ থেকে দেশে পেঁয়াজ আমদানী করেন খুব স্বল্প সংখ্যক ব্যবসায়ী। পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণও করে তারাই। সংকট এদের হাতেই সৃষ্ট। এদের কালো হাতের ইশারায় পেঁয়াজের বাজার ওঠানামা করে। এদের দমন করার মূল দায়িত্ব সরকারের। সরকারের সদিচ্ছাই পেঁয়াজের ও সব্জীর মূল্য  স্বাভাবিক পর্যায়ে আনতে পারে। সরকার যদি পেঁয়াজের ও সব্জীর বাজার নিয়ন্ত্রণে সচেষ্ট না হয় তাহলে এর অগ্নিমূল্যের কারণে সরকারের দীর্ঘদিনের অর্জন ম্লান হয়ে যেতে পারে বলে জানিয়েছেন সচেতন মহল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নারীর অধিকার; সমধিকারের নামে অগ্রাধিকার নয়! -মোহাম্মদ আলাউদ্দিন

Share – মোহাম্মদ আলাউদ্দিন সম্প্রতি কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট উপজেলা সদরের একটি স্কুলে বার্ষিক ক্রিড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আমণন্ত্রিত অতিথি হিসেবে যোগদান করি। ঐ অনুষ্ঠানে স্কুলের নবম শ্রেণির ছেলেমেয়ে তথা নারী-পুরুষ সমধিকারের জন্য গণসচেতনতামূলক একটি অভিনয় ...

অজগর দিয়ে শরীর ম্যাসাজ!

Share চেহারা সুন্দর রাখতে আমরা কত কিছুই না করি! ত্বককে আরাম দিতে মাসে এক বার হলেও স্পা, নানা রকম উপাদেয় দিয়ে স্বাস্থ্যকর ম্যাসাজ করে থাকি। কখনো কি শুনেছেন, একটা অাস্ত অজগর দিয়ে শরীর ম্যাসাজ করার কথা? ঠিক ...