আজ : বৃহস্পতিবার, ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ২২শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং, ১৩ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী, বিকাল ৫:২৮,

শিক্ষিতরা বেশি বেকার !

10সোনালী দেশ: শিক্ষিত মানুষ চাকরি পাবেন, অর্থ উপার্জন করবেন—এটাই স্বাভাবিক। বাংলাদেশে শিক্ষিত মানুষের মধ্যেই বেকারত্বের হার বেশি। তারা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী কাজ পান না। অন্যদিকে যারা কখনো স্কুলে যাননি, শিক্ষার সুযোগ পাননি; তাদের মধ্যেই বেকারত্বের হার সবচেয়ে কম।( খবর – প্রথম আলো , ৯ এপ্রিল ২০১৬ )

বাংলাদেশ শ্রমশক্তি জরিপ ২০১৫ (জুলাই-সেপ্টেম্বর)–এ এই চিত্র উঠে এসেছে। এতে বলা হয়েছে, উচ্চমাধ্যমিক পাস তরুণ-তরুণীদের মধ্যে বেকারত্বের হার সবচেয়ে বেশি, ১১ দশমিক ৭৫ শতাংশ। উচ্চমাধ্যমিক পাস করাদের মধ্যে ৭ লাখ ১৬ হাজার বেকার।

উচ্চশিক্ষিতদের মধ্যে ৫ দশমিক ৭০ শতাংশ বেকার। স্নাতক বা স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়ে ৯৪ হাজার লোক এখনো পছন্দ অনুযায়ী কাজ পাননি। অন্যদিকে অশিক্ষিতদের বেকারত্বের হার সবচেয়ে কম, ২ দশমিক ১৪ শতাংশ। তাদের সংখ্যা ৪ লাখ ১৩ হাজার।

শ্রমশক্তি জরিপ অনুযায়ী, বাংলাদেশে এখন ২৬ লাখ ৩১ হাজার বেকার রয়েছেন। বেকারদের মধ্যে প্রায় ৩১ শতাংশ কিংবা ৮ লাখ ১০ হাজারই হলন উচ্চমাধ্যমিক কিংবা স্নাতক ডিগ্রিধারী। বেকার জনগোষ্ঠীর প্রায় ৭৪ শতাংশের বয়স ১৫ থেকে থেকে ২৯ বছর। তাদের মধ্যে উচ্চশিক্ষা শেষ করেও প্রায় ৭৮ হাজার তরুণ-তরুণী কাজ বা চাকরি পাচ্ছেন না।

বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) গবেষণা পরিচালক রুশিদান ইসলাম রহমানের মতে, শিক্ষিতদের মধ্যে বেকারত্বের হার বেশি হওয়ার দুটি কারণ থাকতে পারে। প্রথমত, উচ্চমাধ্যমিক পাস করা তরুণ-তরুণীরা খুব বেশি মেধাবী নন। তাই তারা কাজ পান না। আর উচ্চশিক্ষিতরা তাদের পছন্দ অনুযায়ী কাজ পান না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ের মুখ্য অর্থনীতিবিদ জাহিদ হোসেন বলেন, ‘শ্রমবাজারের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো শিক্ষিতদের জন্য আমরা ভালো ও উচ্চ আয়ের কর্মসংস্থান তৈরি করতে পারছি না।

তারা বাধ্য হয়ে নিম্ন উৎপাদনশীলতার কাজে নিয়োজিত হন। এতে তাদের মেধার সম্ভাবনা ক্ষয় হচ্ছে। তাই জনসংখ্যা বোনাসের সুবিধা অর্থনীতিতে পাওয়া যাচ্ছে না।’

তার মতে, দেশের শ্রমবাজার অনানুষ্ঠানিক খাতের ওপর নির্ভরশীল। শিল্প ও সেবার মতো সুগঠিত খাতে শ্রমবাজার গেলে শিক্ষিতদের সুযোগ আরও বাড়বে।

বর্তমানে শ্রমশক্তির আকার ৬ কোটি ১৪ লাখ। এর মধ্যে ৫ কোটি ৮৭ লাখ কাজ করেন। তাঁরা সপ্তাহে কমপক্ষে এক ঘণ্টা কাজ করেন। এ বিশাল কর্মরত শ্রমশক্তির মধ্যে ৩২ শতাংশ বা ১ কোটি ৯০ লাখ লোকের কোনো শিক্ষাগত যোগ্যতা নেই।

অনানুষ্ঠানিক খাতে ৮৫% কর্মসংস্থান: অনানুষ্ঠানিক খাতে দেশের প্রায় ৮৫ শতাংশ কর্মসংস্থান হয়। সর্বশেষ শ্রমশক্তি জরিপ অনুযায়ী, অনানুষ্ঠানিক খাতে কাজ করেন প্রায় ৪ কোটি ৯৬ লাখ ৫৪ হাজার লোক।

আর আনুষ্ঠানিক খাতে এ সংখ্যা মাত্র ৮৯ লাখ ৭০ হাজার। অনানুষ্ঠানিক খাতে শিক্ষিতদের চেয়ে অশিক্ষিতরাই বেশি কাজ পান। ১ কোটি ৭৮ লাখ শ্রমিক আছেন, যাদের কোনো শিক্ষাগত যোগ্যতা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাজশাহীর মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন!

Share নজরুল ইসলাম তোফা:: রাজশাহীকে বদলে দেয়ার অঙ্গীকার নিয়ে ইতোমধ্যেই ক্ষমতাশীন দলের নেতা এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন সহ অনেক নেতা কর্মীরা মিলিত হয়ে যেন জয়ের হিসাব নিকাশ কষে নির্বাচনী প্রচারণায় চালিয়ে যাচ্ছেন। রাজশাহী মহা ...

নাঙ্গলকোট রাইটার্স এসোসিয়েশনের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

Share স্টাফ রির্পোটার: লেখক-সাহিত্যিকদের প্রিয় সংগঠন নাঙ্গলকোট রাইটার্স এসোসিয়েশনের উদ্যোগে লাকসাম পৌরশহরস্থ স্বদেশ রেস্তোরা মিলনায়তনে ইফতার মাহফিল ও দোয়ার আয়োজন অনুষ্ঠিত হলো ১ জুন শুক্রবার। সংগঠনের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসাইন মিয়াজীর প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় ও সংগঠনের ...